অনলাইনে ইনকাম কিভাবে করবেন

অনলাইনে ইনকাম কিভাবে করবেন


বর্তমান জগতে  Internet  একটা একান্ত প্রয়োজনীয় বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে মানবজীবনে আর এই ইন্টারনেট প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে বিভিন্ন মানুষ পেশাগত দিক দিয়ে অনেক অনেক টাকা ইনকাম করছেন কিভাবে অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করা যায় এই বিষয়টা যদি পুরোপুরি আলোচনা করা হয় তাহলে হয়তো সারাটা দিন লেগে যাবে

 অনলাইনে প্রচুর টাকা ইনকাম করার সুযোগ থাকলেওএকটু সাবধানতা বজায় রেখে কাজ করতে 
হবে না হলে আপনাকে প্রতারণার মুখে পড়তে হতে পারে কারণ এমন অনেক অনেক  Website আছে যেগুলো আপনাকে লাখ লাখ টাকার লোভ দেখিয়ে তাদের নিজের কাজ করিয়ে নিয়ে চলে যায়

একটা বিষয় মাথায় রাখা দরকার যে অনলাইনে কাজ করে রাতারাতি কোটিপতি হওয়া যায় না তাই এই দিকটা তেও সতর্কতা বজায় রাখতে হবে এখন আমরা 100% বিশ্বস্ত কিছু অনলাইন  ইনকাম এর পথ নিয়ে আলোচনা করব 


ইনকাম কিভাবে করবেন


ইউটিউব (YouTube): 


বিশ্বের অন্যতম প্লাটফর্মের মধ্যে একটি হল ইউটিউব ইউটিউব হল Google এর নিজস্ব প্রোডাক্ট মানে সৃষ্টবস্তু ইউটিউবে আপনি  Video বানিয়ে টাকা ইনকাম করতে পারেন আপনি কোন বিষয়ে পারদর্শী এবং কোন Category  Video আপনি তৈরি করবেন সেটি আপনাকে আগে থেকেই ঠিক করে  নিন তবে আপনাকে এটাও খেয়াল রাখতে হবে যে মানুষ কোন ধরনের  Video দেখতে আগ্রহী সেই ধরনের ভিডিও না বানালে আপনার  Viewer  অর্থাৎ দর্শক আসবেনা আর দর্শক না আসলে আপনার কোন ইনকাম হবে না

আসলে  view  থেকে কোন টাকা পাওয়া যায় না সমস্ত টাকা আছে এডভেটাইজর এর কাছ থেকেআপনার video  চলতে চলতে যে Add এগুলো দেখানো হবে আপনি সেই এডের কিছু পরিমাণ টাকা পাবেনতাই যত বেশি  Views আপনার ভিডিওটাতে আসবে ততবেশি Add Show  করবে আর আপনি ততো বেশি টাকা Income করতে পারবেন এডভেটাইজর দের পাওয়া টাকার ৫৫ শতাংশ রাখবেন ইউটিউব আর  ৪৫ শতাংশ দেওয়া হবে আপনাকে Google adsence এর  মাধ্যমে


ওয়েবসাইট বা  ব্লগিং:(Website And Blogging):


  যেসব মানুষ Camera এর  সামনে আসতে রাজি নয় সেসব মানুষ আর্টিকেল লিখে প্রতিদিন লক্ষ লক্ষ টাকা অনলাইন ইনকাম করছেন
ওয়েবসাইট বা  ব্লগিং( Website And Blog) তৈরি করতে গেলে ওয়েবসাইট এর নামকরণ করতে হবে ইন্টারনেটের ভাষায় এটাকে "ডোমেইন”(Domain) বলা হয়

এরপর আপনি আপনার Skill  বা দক্ষতা অনুযায়ী একটা একটা উপযুক্ত Category  খুঁজুন এবং সেই বিষয়ে লিখতে আরম্ভ করে দিন অবশ্যই লেখা যেন একদম ইউনিক মানে নির্ভেজাল হয় প্রায় 30 টিরও অধিক Post  লেখা হয়ে গেলে Google Adsence  এর কাছে Request  পাঠান আপনার ওয়েব সাইটে এড লাগানোর জন্য 


Google  আপনার ওয়েবসাইটটি Review  করবে এবং দেখবে কোন নির্ভেজাল বা নোংরা জাতীয়  আর্টিকেল কিছু  লেখা আছে কিনা Google  পরিতৃপ্ত পেলে আপনার ওয়েবসাইটটি Add  লাগাতে প্রস্তুত হবেন

আপনার ওয়েবসাইটে যত বেশি  Visitor  আসবে আরGoogle Adsence  এর  লাগানো এডে যত বেশি ক্লিক হবে তত বেশি আপনার  ইনকাম হবে একটা বিষয় মাথায় রাখা দরকার যে আপনি যদি অন্য কারো আর্টিকেল Copy  করেন তাহলে Google Adsence  আপনার  Account  সাসপেন্ড অর্থাৎ বন্ধ করে দেবে


 অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং(Affiliate Marketing): 


বর্তমান যুগে  অনলাইন ইনকাম এর দিক থেকে এফিলিয়েট মার্কেটিং ভীষণভাবে জনপ্রিয়তা পেয়েছেআজকাল মানুষ অনলাইনে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে প্রচুর প্রচুর টাকা ইনকাম করছেন আসলে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং হলো নিজের কোন Website বা কোন সোশ্যাল মিডিয়া থেকে কোন একটা কোম্পানির 
উদাহরণস্বরূপ:-




  1. amazon.in 
  2. flipkart.in  


Product  কে এডভেটাইজ করে বিক্রয় করলে যে কোম্পানির প্রোডাক্ট টা বিক্রয় করবেন সেই কোম্পানির তরফ থেকে আপনি কিছু পারসেন্ট কমিশন পাবেন
 কত পারসেন্ট কমিশন পাবেন সেটা নির্ভর করবে আপনি কোন ক্যাটাগরির Product টা বিক্রি করছেন তার উপর
কোন কোম্পানির অ্যাফিলিয়েট পার্টনার হতে গেলে আপনাকে সেই কোম্পানির affiliate-program Regester  হওয়া বাধ্যতামূলক


সোশ্যাল মার্কেটিং(Social Marketing ):


Facebook ,Instagram শুধু সময় পাস করার জন্য নয় এটা একটা খুব ভালো পথ হতে পারে অনলাইন ইনকামের জন্যআপনার সোশ্যাল মিডিয়ায় তেমন যদি বেশি পরিমাণ ফ্যান ফলোয়ার্স থাকে তাহলে আপনি   কোম্পানির কাছ থেকে Sponsorship নিতে পারেন আপনার ওই ফেসবুক পেজে সেই কোম্পানির এড দেখিয়ে অনলাইন থেকে অনেক অনেক টাকা ইনকাম করতে পারেন

একটা  Product  প্রচার এর জন্য কোম্পানির মালিক প্রচুর পরিমাণ টাকা বিনিয়োগ করে তাছাড়া আপনি আপনার সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে  কোন ওয়েবসাইট এডমিনের কাছ থেকেও আয় করতে পারেন তার ওয়েবসাইটে  ট্রাফিক অর্থাৎ  দর্শক পাঠিয়ে



ফ্রিল্যান্সিং(Freelancing):


সারা বিশ্বজুড়ে অনলাইন ইনকামের একটা গুরুত্বপূর্ণ দিক হলো ফ্রিল্যান্সিং(Freelancing)  বিভিন্ন দেশ থেকে কোটি কোটি  টাকা প্রতিদিন  ইনকাম করছেন এই ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ করেফ্রিল্যান্সিংয়ে হাজার হাজার ধরনের কাজ উপস্থিত আছে  শুধু আপনারb Skill  অর্থাৎ দক্ষতাকে অনুসরণ করে কাজের রাস্তাটি বেছে নিতে হবে

ফ্রিল্যান্সিং কাজ করার জন্য অনেক Website  রয়েছে তার মধ্যে কিছু Website  আমি উল্লেখ করলাম


আপনি একজন  অনলাইন কর্মী হিসাবে কাজ করবেন যে ক্ষেত্রে আপনি আপনার প্রয়োজনীয় অর্থ আপনার ক্লায়েন্টকে  চার্জ করবেন

নিচে কিছু জনপ্রিয়তা প্রাপ্ত কাজের সম্বন্ধে আলোচনা করলাম


লোগো ডিজাইন বা গ্রাফিক গ্রাফিক্স ডিজাইনিং:

ফ্রিল্যান্সিং এর দুনিয়ায় লোগো ডিজাইন গ্রাফিক ডিজাইনিং করে প্রচুর পরিমাণে টাকা  অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম  করা যায় হতে পারে সেটি কোন কোম্পানির লোগো বা কোন ওয়েবসাইটের লোগো বা কোন ইউটিউব চ্যানেলের লোগো

এছাড়াও গেম ডিজাইনিং(Game Design) পোস্টার ডিজাইন ব্যানার এড ফটোশপ এডিটিং (Photoshop Editing)  এরকম বিভিন্ন ধরণের কাজও রয়েছে
10 মিনিট কাজ করে হাজার  Doller  পর্যন্ত  Income করা যায় কিন্তু এই কাজে আপনাকে দক্ষতা সম্পন্ন  ডিজাইনার হতে হবে


ওয়েব ডিজাইনিং এবং ওয়েব ডেভেলপমেন্ট:


এখন ওয়েব ডেভলপার এবং ওয়েব ডিজাইনিং এর প্রচুর কদর রয়েছে বিভিন্ন নামিদামি Company  এখন অনলাইনে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান করতে ইচ্ছুক তাই তারা   Website  বানানোর জন্য কোন ওয়েব ডেভলপারকে হায়ার করছে একজন ওয়েব ডেভলপার হতে গেলে আপনাকে Http,PhP , Java Script, সব ল্যাঙ্গুয়েজ শিখতে হয়


সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন( SEO):

একজন ভালো SEO Expart অর্থাৎ SEO বিশেষজ্ঞ প্রচুর প্রচুরটাকা অনলাইন থেকে  ইনকাম করেসাধারণত কোন Website  বা কোন Web page  গুগোল সার্চ এর মধ্যে নিয়ে আসাটাই হলো SEO এর একমাত্র কাজ কোন কলাকৌশল ব্যবহার করলে একটি ওয়েব পেজ Google Search    আসবে এটা বিশ্লেষণ করাই হলো SEO এক্সপার্ট এর কাজ.


কনটেন্ট রাইটিং : 


যারা লিখতে ভালোবাসেন তাদের জন্য Online এর  কাজের কোনো অভাব নেই কাজদাতা যে Topic  অর্থাৎ প্রসঙ্গে লিখতে বলবেন এবং যতগুলি শব্দে (Word)  লিখতে বলবেন তার সেরকম ভাবেই ইনকাম এর পরিমান নির্ধারিত হবে। এর সঙ্গে আপনাকে অত্যন্ত নিয়মনিষ্ঠা (Rules) এবং নির্ভুলতা বজায় রেখে কাজ করতে হবে

ট্রান্সলেট অর্থাৎ অনুবাদ

বিভিন্ন ভাষায় অনুবাদ(Translate)  করেও অনলাইনে বেশ ভালো পরিমাণে ইনকাম  করা যায়এক্ষেত্রে আপনাকে ইংরেজি সাথে সাথে বিভিন্ন ধরনের ভাষা জানার প্রয়োজন যেমন  ফ্রান্স ,জার্মান ,স্প্যানিশ আরো অন্যান্য ভাষা জানা প্রয়োজন  ফ্রিল্যান্সিংএ অনেক দেশের মানুষ আছে যারা বিভিন্ন বিভিন্ন দেশ থেকে ফ্রিল্যান্সিং করছেন সে ক্ষেত্রে কাজদাতা সময়ের অভাবে নিজে অনুবাদ (Translate) না করে কোন ফ্রিল্যান্সারকে দিয়ে কাজটা করিয়ে নেন তাই এই ধরনের কাজ  প্রচুর মাত্রায় পাওয়া যায়


ভিডিও এডিটিং

শুধুমাত্র ভিডিওকে এডিটিং করে অনলাইন থেকে ভালো একটা ইনকাম করা যায় যেমন কোন ইউটিউব ভিডিও বা কোন ব্লগ(vlog)  ভিডিও বা কোন প্রকার মুভি ভিডিও  Editing  করে এবং সামান্য কিছু ভিডিও ইফেক্ট দিয়ে খুব সুন্দর Video Editing  করা যায়এক্ষেত্রে সময় বাঁচানোর জন্য কাজদাতা এগুলো ফ্রিল্যান্সারকে দিয়ে করায় কিছু কিছু ফ্রী Software  আছে যেগুলো ব্যবহার করে খুব ভালো ভিডিও এডিটিং করা যায়

ডেটা এন্ট্রি :

ফ্রিল্যান্সিং (Freelancing) এ সবচেয়ে বেশি যদি কোন কাজ থেকে থাকে সেটি হল ডাটা এন্ট্রি এই কাজটি করা খুবই সহজ
এতে আপনার কোন বিশাল দক্ষতা(Skill) প্রয়োজন নেইএক্ষেত্রে আপনার কাজ যদি কাজদাতার ভালো লেগে থাকে তাহলে আপনাকে সে বারবার কাজের জন্য ডাকবে আর Data entry  কাজটি আপনি কয়েক দিনের মধ্যেই ইউটিউব ভিডিও দেখে শিখে নিতে পারেন


টাইপিং:

বিভিন্ন ধরনের টাইপিং করে অনেক মানুষ অনলাইন থেকে আয় করছেন কিন্তু টাইপিং করার জন্য যেটা সবচেয়ে প্রয়োজন সেটি হলো আপনার টাইপ করার গতি(Speed) আপনার টাইপ করার গতি(Speed) যত বেশি হবে তত তাড়াতাড়ি আপনি আপনার শব্দ (Word)  লিখতে পারবেন এক্ষেত্রে  আপনাকে
PDF,IMAGE, এই ধরনের File দেবে এবং আপনাকে সেগুলো ওয়ার্ডে (Word) এ পরিণত করে দিতে হবে


অনলাইন টিচিং


কোন একটা নির্দিষ্ট বিষয়ে ভালো জ্ঞান (Knowledge)থাকলে আপনি সেই বিষয়ে অনলাইন শিক্ষা দিতে পারেন এটাও একটা ভাল রাস্তা অনলাইন থেকে টাকা উপার্জন করার যেমন আপনি  ইংলিশ জানেন না আপনি খুঁজছেন এমন একজন শিক্ষক যিনি  ইংরেজিতে পারদর্শিতা
এখন মানুষ অফলাইনে(Off line) থেকেও অনলাইন কে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে শিক্ষার দিক দিয়েও



ফটোশপ


ভাবার বিষয় ফটোশপে শুধুমাত্র কোন ছবির ব্যাকগ্রাউন্ড রিমুভ(Background Remove)  করে খুব ভালো পরিমাণ অর্থ অনলাইন থেকে ইনকাম করা যায় কোন অধিক জ্ঞান বা দক্ষতার প্রয়োজন নেই আপনি শুধুমাত্র একঘন্টা প্র্যাকটিস করলেই এই সাধারন কাজটি করতে পারবেন

Oldest