বিটকয়েন কি এবং কিভাবে বিটকয়েন উপার্জন করব

বন্ধুরা এই বিশ্বে লেনদেন করার জন্য অনেক ধরনের কারেন্সি ব্যবহার করা হয় যেমন ইন্ডিয়ান রুপিজ ডলার-পাউন্ড ইত্যাদি। এবং হতে পারে আপনার পকেট এ এই মুহূর্তে এই কিছু কারেন্সি যেকোনো একটি আপনি ব্যবহার করছেন। আপনি যে কারেন্সি টি ব্যবহার করছেন সেটি আপনি স্পর্শ করতে পারবেন কিন্তু আমি আপনাদের একটি কারেন্সির কথা বলব যেটি আপনি না চোখে দেখতে পাবেন না স্পর্শ করতে পারবে। 

বিটকয়েন কি এবং কিভাবে বিটকয়েন উপার্জন করব


হ্যাঁ বন্ধুরা এই কারণ সিটির নাম হলো বিটকয়েন।বিটকয়েন কোন কোন বার নোট নয় এটি একটি ভার্চুয়াল কারেন্সি অর্থাৎ ডিজিটাল কারেন্সি যেটা কিনা ইন্টারনেটের দ্বারা ব্যবহৃত হয়ে থাকে।

এই বিটকয়েন ঠিক প্রথমবার চালু করা হয় 2009 সালে এবং যে ব্যক্তিটি এই বিটকয়েন টি চালু করেন তার নাম হলো Swadeshi Nakamoto


বিটকয়েন এর মত অনেক ধরনের নিত্য নতুন কারেন্সি বাজারে এসেছে কিন্তু সমস্ত বিশ্বে বিটকয়েন একটি আলাদা নাম অর্জন করেছে।


 বিটকয়েন এর দাম কত কত


আজকের দিনে একটি বিটকয়েন এর দাম প্রায় 9 হাজার ডলার যেটি ভারতীয় মুদ্রায় রূপান্তরিত করলে প্রায় ছয় লাখ টাকার অধিক।


কিন্তু আপনি যদি ভেবে থাকেন একটি বিটকয়েন এর মূল্য সর্বদা এটাই থাকবে তাহলে আপনি ভুল করছেন কারণ বিটকয়েন এর দাম কমবেশি হতে থাকে।

অর্থাৎ আজকে যদি আপনার পকেট এ 2000 টাকার নোট থাকে তাহলে দশ বছর পরেও আপনার ওই দুই হাজার টাকার মূল্য 2000 থেকে যাবে কিন্তু আজকে যদি আপনার কাছে একটি বিটকয়েন থাকে তাহলে এটা বলা সম্ভব নয় যে দশ বছর পরে আপনার একটি বিট কয়েনের মূল্য আজকের মূল্যের তুলনায় সমপরিমাণ থাকবে।


একটি বিটকয়েন এর মূল্য অনেক তাই আপনি এটার কিছু পরিমাণ অংশ খরচ করতে পারেন যেমন 100 টাকা মানে আপনার কাছে এক টাকা 100 টি রয়েছে। আপনি এক টাকা 100 বার খরচ করতে পারবেন তেমনি আপনি একটি বিটকয়েন এর একটি অংশ খরচ করতে পারবেন।


একটি বিটকয়েন অর্থাৎ 0.00000001satoshi এক্ষেত্রে আপনি কিছু Satoshi খরচ করতে পারেন।


বিভিন্ন দেশে কিছু কিছু জায়গায় বিটকয়েন একসেপ্ট করা হয় কারেন্সি হিসেবে এক্ষেত্রে আপনি একটি বিটকয়েন নিয়ে কিছু দ্রব্বের বিনিময় এটিকে খরচ করতে পারেন।


কোথা থেকে কিনবেন এই বিটকয়েন



এমন অনেক ধরনের ওয়েবসাইট এবং এপ্লিকেশন আছে যার মাধ্যমে বিটকয়েন কেনা বেচা যায় এদের মধ্যে সবচেয়ে অন্যতম অ্যাপ্লিকেশন হলো payzap.

অ্যাপ্লিকেশনের মাধ্যমে আপনি আপনার ব্যাংকের টাকার বিনিময় বিটকয়েন কিনতে পারেন এবং আপনার এই অ্যাপ্লিকেশনে জমা বিট কয়েন বিক্রি করে আপনার ব্যাংক একাউন্টে টাকা ট্রান্সফার করে নিতে পারেন।



বিটকয়েন কেনা টা ঠিক কিনা


আমি আপনাদের কাছে রিকোয়েস্ট করছি এই বিটকয়েন এ টাকা ইনভেস্ট না করার জন্য কারণ আজকে যদি আপনি বিটকয়েন কিনেন তাহলে হতে পারে কালকে আপনার টাকা দ্বিগুণ হয়ে গেছে এবং এটাও হতে পারে যে আপনার টাকাটি অনেকখানি কমে গেছে।


যদি ইনভেস্ট করতে চান তাহলে ততটুকু পরিমাণ টাকা ইনভেস্ট করুন যে পরিমাণ টাকা কালকে যদি বিট কয়েনের মূল্য শূন্য হয়ে যায় তাতে আপনার কোন ধরনের অসুবিধে না হয়।


এমন অনেক ধরনের প্রমাণ রয়েছে যে অনেক ব্যক্তি ব্যাংক থেকে টাকা লোন দিয়ে বিটকয়েন ইনভেস্ট করেন এবং বিটকয়েনের মান কমে যাওয়াতে তাদের অনেক অসুবিধা হয়েছে। তাই সতর্ক থাকা খুবই দরকার।


আশা করি আমি আপনাদেরকে বুঝাতে পেরেছি যে বিটকয়েন কি এবং এর মূল্য কত আর কিভাবে আপনি বিটকয়েন কেনা বেচা করতে পারবেন।

gyanpradip.online এর পক্ষ থেকে আপনাকে ধন্যবাদ আপনার মূল্যবান সময় দিয়ে এই পোস্টটি পড়ার জন্য।
Previous
Next Post »